UK

UK ভিসা

লন্ডন যাবার সুবর্ণ সুযোগ আর হাতছারা নয় ‼️ আপনি জানেন তো UK টুরিস্ট ভিসা এখন আগের থেকে অনেক সহজ করা হয়েছে। দু, তিন টি দেশ ভ্রমণের পাশাপাশি আপনার একটু ভালো Bank Statement থাকলে আপনি ও পেতে পারেন এই ভিসা। আগের থেকে ভিসা একটু সহজ হওয়ায় ভিসা পাবার সম্ভাবনা অনেক বেশি বেরে গেছে তাই এখনই ফাইল সাবমিট করার উপজুক্ত সময়। স্ব- পরিবারে কিংবা নিজেই বেরিয়ে আসতে পারেন এই টুরিস্ট ভিসা নিয়ে। এই ভিসা পরবর্তীতে আপনার অন্যান্য ভিসা পেতে কিংবা ইমিগ্রেসন ভিসা পেতে অতি সহাহক হবে। তাই যারা UK ভ্রমন করতে চান এই উপযুক্ত সময় কাজে লাগিয়ে আপনার পাসপোর্টটি আরও ভারি করতে পারেন।

UK ভিসার জন্য খুব বেসি ডকুমেন্টের প্রয়োজন হয় না। অন্যান্য ভিসার মত স্বাভাবিক প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সাবমিট করলেই চলে। এছাড়া নিজেই এম্বাসিতে গিয়ে ডকুমেন্ট সাবমিট করা যায় তাই আত্মবিশ্বাস ও অনেক বেশি বেরে যায়। আপনি চাইলে আপনার নির্ধারিত দিনে নির্ধারিত সময়ে এম্বাসি ফেজ করতে পারেন। যেনে রাখা ভালো, UK এম্বাসিতে আপনি ব্যতীত আপনার ফাইল অন্য কেহ জমা দিতে ও উঠাতে পারবে না। তাই প্রতারণার সম্ভাবনা নাই বল্লে ই চলে।

UK সাধারণত বাংলাদেশী নাগরিক দের কয়েক টাইপের ভিসা দিয়ে থাকে যেমন Visit, Study, Work permit, Business, Transit, Settlement e.t.c. এগুলোর মধ্যে Visit ভিসা পেতে আমরা অনেকে আগ্রহ প্রকাশ করি। কিন্তু আমাদের অনেকেরই UK Visit ভিসা সম্পর্কে খুব বেশি জানা নাই। UK সাধারণত প্রথমবার UK Visitor দের ৬ মাসের মাল্টিপল ভিসা ইস্যু করে। এরপর দু, পাঁচ কিংবা দশ বছরের ভিসার জন্য আবেদন করা যায়। তাই যাদের একবার Visit করা আছে তারা চাইলে আবার ও দীর্ঘ সময়ের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারেন ।

UK ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সমূহ
➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖ ➖
– ২ কপি সদ্য তোলা রঙ্গিন ছবি (পাসপোর্ট সাইজ, সাদা বাকগ্রাউন্ড, ম্যাট পেপার ল্যাব প্রিন্ট) ।
– ৬ মাস মেয়াদের পাসপোর্ট।
– পাসপোর্টের ১ ও ২ নং পাতার ফটোকপি (পুরানো পাসপোর্ট থাকলে অবশ্যই তা সাথে নিতে হবে) ।
– জাতীয় পরিচয় পত্র- এর ফটোকপি (বাচ্চাদের ক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন সনদ-এর ফটোকপি।
– ইংরেজী অক্ষরে ছাপা দুই কপি ভিজিটিং কার্ড ( ব্যবসায়ী ও চাকুরিজীবি উভয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য )।
– ৬ মাস ব্যাংক স্টেটমেন্ট ও ব্যাংক সল্ভেন্সি সার্টিফিকেট (ব্যাংকের সীল ও স্বাক্ষর সহ অরিজিনাল কপি ও ১ সেট ফটোকপি) ।
– ট্রেড লাইসেন্স –এর ফটোকপি সহ ইংরেজি অনুবাদ ও নোটারাইজড এর অরিজিনাল কপি (ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য) ।
– কোম্পানির দুই কপি ইংরেজি অনুবাদ ও নোটারাইজড এর অরিজিনাল কপি ( ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য) ।
– সদ্য বিবাহিত ক্ষেত্রে নিকাহ নামা এর ফটোকপি সহ ইংরেজী অবুবাদ ও নোটারাইজড এর অরিজিনাল কপি।
– N.O.C –নো অবজেকশন সার্টিফিকেট এর অরিজিনাল কপি ও ১ সেট ফটোকপি (বেসরকারি চাকুরিজীবীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য) ।
– অবসরের কাগজ এর ফটোকপি ইংরেজী অনুবাদ ও নোটারাইজড এর অরিজিনাল কপি (অবসরপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য ।
– স্টুডেন্ট আইডি কার্ড অথবা সর্বশেষ বেতন রশিদের ফটোকপি (ছাত্র/ ছাত্রীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য) ।

ভিসা সম্পর্কে বিস্তারিত যানতে কিংবা যে কোন ধরনের পরামর্শের জন্য যোগাযোগ করুন আমাদের সাথে অথবা Mail করুন 📩